১৩ অক্টোবর, ২০১৫

কাউন্টডাউন- ১ : তা সদলবলে কেন গো মা? একা এলেই বা কি ক্ষতি?

তোমাদের কি মত???

এরা কেউ মায়ের পেটের ছেলেমেয়ে নয়। এরা যে কি করে সব উড়ে এসে জুড়ে বসল দুর্গার পরিবারের সাথে! মাদুর্গা কি সকলকে ঠাঁই দেন এভাবেই? নাকি নিজের সুবিধার্থে? মনে মনে ভাবি, এই কি তবে আমাদের সংস্কার? 

মহিষাসুরমর্দিণী দুর্গাপূজার সূত্রপাত ঘটে গুপ্তযুগে । বাঙালী কল্পনাপ্রবণ জাতি । সপরিবারে মা দুর্গাকে না দেখলে তাদের যে মন ভরেনা । তাই তো দুই শক্তি লক্ষ্মী ও সরস্বতীকে দুপাশে আমরা দেখি এবং মহানন্দে বরণ করি । গণেশ, কার্তিক, লক্ষ্মী, সরস্বতী সকলেই তো অন্যসময়ে আসেন একবার করে তাহলে মায়ের সাথে কেন তাদের আসা চাই-ই??? অথচ দুর্গাপুজোর সময় চালচিত্রের মাথায় ছোট্ট করে লুকিয়ে থাকেন মহাদেব। উনি কি তবে নাটের গুরু? 
কার্তিক না হয় দেবসেনাপতি। সে তরুণ সদৃশ, সুকুমার, শক্তিধর এবং সর্বসৈন্যের পুরোভাগে অবস্থান করে । তাই মাদুর্গার যুদ্ধযাত্রায় এমন শৌর্যবীর্য সম্পন্ন পুত্র সঙ্গী না হয়ে যায় কোথায় ! অসুরের সাথে যুদ্ধের সময় তাকে মায়ের খুব প্রয়োজন। 
গণেশ না হয় ত্রিকাল জ্ঞানী, সিদ্ধিদাতা, বিঘ্নেশ অর্থাত সকল বাধা বিঘ্ন নাশ কারী । যুদ্ধের মত ভয়ানক পরিস্থিতিতে তাঁর স্মরণ অবশ্য কর্তব্য কিন্তু বাকীরা? অর্থাত লক্ষ্মী-সরস্বতী? তাঁদের কি ভূমিকা এই দুর্গাপুজোতে?
কেউ বলেন এঁরা মায়ের অন্য দুটি রূপ। শ্রী শ্রী চন্ডীতে দুর্গাদেবীকেই মহালক্ষ্মী ও মহাসরস্বতী রূপে আখ্যা দেওয়া হয় । লক্ষ্মীদেবী হলেন বিষ্ণুপ্রিয়া বা নারায়ণী যিনি সৌভাগ্য, ঐশ্বর্য্য এবং সমৃদ্ধির প্রতীক আর সরস্বতী হলেন বাগদেবী, বিদ্যা-বুদ্ধির অধিষ্ঠাত্রী, জ্ঞানদায়িনী। অর্থাত এই দুই নারীশক্তি সকল শুভ, সৃজনশীল, গঠনমূলক ক্রিয়াকলাপের উত্স । তাই শুভ শক্তির প্রতীকও বটে ।

কোন মন্তব্য নেই: