২০ আগস্ট, ২০১০

"প্ল্যান-চ্যাট " (অণুগল্প)

রাতটা চব্বিশে বোশেখের আর সময়টা পোষ্টডিনার ।  সন্ধ্যেটা ছিল বৃষ্টিময়তায় মাখা, মনটা ছিল প্রাক-রবীন্দ্রজয়ন্তীর  আড্ডার মেজাজে । ঋক, ঋভু, ঋজু আর ঋতম এর হাতে তৈরী ব্যান্ডের বার্ষিক প্রোগ্রাম “ঋ এ রবি, রাতের তারা”..তারই জোর প্রস্তুতি | প্রাণ চাঞ্চল্যে ভরপুর, নতুন যৌবনের এই চারজন দূতের অনেক স্বপ্ন মনে আর স্বপ্ন নিয়েই এই চঞ্চলতা । গ্রুপচ্যাটে চারজনের প্রতিদিনের নেটালাপে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ পরিকল্পনার রূপায়ণের প্রয়াস চলে। সেদিন ছিল প্রোগ্রামের আগের রাত । তাই উত্তেজনার পারদ হৈ হৈ করে উঠেছিল আর দুকুল-প্লাবি চারটি মন-নদীর চ্যাট-বক্স যেন উপছে পড়ছিল কথায়, কথায় আর কথায় …
ঋক : তাহলে ঋজু শুরু করছে আবৃত্তি দিয়ে “তোমারে নমি এ সকল ভুবন মাঝে ….”
ঋভু : এরপরে ঋক তোর গান “তুমি কি কেবলি ছবি, শুধু পটে লিখা….”
ঋজু : নেকস্ট ঋক, তোর নিজের কথায় আর সাথে গীতাঞ্জলি থেকে পাঠ …
ঋতম : এবার আবার ঋভুর সোলো গান  “শুধু তোমার বাণী নয় গো, হে বন্ধু হে প্রিয়…”
ঋক : এবার আমাদের কোরাস “আজি শুভ দিনে পিতার ভবনে অমৃত সদনে চল যাই “  তাই তো রে?
ঋভু : হ্যাঁ, ঠিক আছে |এবারে সঞ্চয়িতা থেকে বনবাণীর  উদ্‌বোধন কবিতার অংশ,  আমার আর ঋজুর দ্বৈত আবৃত্তি “ডেকেছ আজি, এসেছি সাজি হে মোর লীলাগুরু —”
ঋভু : মানে  “নৃত্যলোল চরণতলে মুক্তি পায় ধরা, ছন্দে মেতে যৌবনেতে রাঙিয়ে ওঠে জরা”  পুরোটা তো ?
ঋতম : এবার আবার  আমাদের চারজনের কোরাস “আলোকের এই ঝরণাধারায় ধুইয়ে দাও ”
ঋক : @ ঋতম, ঠিক আছে, মিউজিসিয়ানদের পেমেন্ট গুলো নিয়ে যাস খামে ভরে
ঋভু : @ ঋক,  মাইক ওলা কে আবার বলে দিস, সময় মত পৌঁছে যেতে
ঋজু : @ ঋতম,  তুই তাহলে ফুল-মালা-মিষ্টির প্যাকেট নিয়ে হাজির হচ্ছিস কাল
ঋতম : তাহলে কাল বিকেল ৫টা, সবুজবীথি, চাষীর বাগান মাঠ

হঠাত্‌ পাবলিক চ্যাট রুমে আবির্ভাব এক অজ্ঞাতকুলশীল পঞ্চম অতিথির । ইথার তরঙ্গের বাতাস যেন ভারি হয়ে গেল নিমেষের মধ্যে । নিবে গেল ঘরের আলো, শুধু জ্বলতে লাগল ল্যাপটপের আলো…..
গেষ্ট : তোমাদের  কিসের এত তোড়জোড় চলছে?
ঋক : আমাদের আগামীকাল রবিঠাকুরের সার্ধশতবর্ষ জন্মজয়ন্তীর একটা প্রোগ্রামের ব্যাপারে কথা হচ্ছে।
গেষ্ট: তোমরা এই সাইবার এজের তরুণেরা এখনও রবীন্দ্র চর্চা কর বুঝি?
ঋভু : মানে? রবীন্দ্রনাথ আমাদের শয়নে, স্বপনে, জাগরণে…
গেষ্ট : তার মানে তোমরা এখনো পড়?”তাল গাছ একপায়ে দাঁড়িয়ে, সব গাছ ছাড়িয়ে”
ঋক : কেন ? আপত্তি কোথায়?
গেষ্ট : তোমরা সহজ পাঠ পড়েছ?
ঋতম : না পড়ে আজ রবীন্দ্রনাথ বলে চেঁচাচ্ছি বুঝি?
গেষ্ট : তোমরা  কেমন রবীন্দ্রনাথ পড় । আমাদের সময় আমরা পেয়েছি কালিদাসকে, আর পড়েছি বিদেশী সাহিত্য।
আচ্ছা তোমাদের কি মনে হয়না যে এই রবীন্দ্রনাথের জন্য কত শিল্পী আজ করে খাচ্ছে।
ঋতম : হ্যাঁ, ঠিক ই তো |
গেষ্ট : কিন্তু রবীন্দ্রনাথের গান, আবৃত্তি, নাটক এ নিয়ে তো দেশের সক্কলে কবিপ্রণাম জানাচ্ছে তা তোমরা কিছু নতুন জিনিষ ভাবছ না কেন?
গেষ্ট : পদার্থবিদেরা নিউটোনিয়ান মেকানিক্স বা যাকে তোমরা ক্লাসিকাল মেকানিক্স বল, তা থেকে এগিয়ে গিয়ে কোয়ান্টাম মেকানিক্সের সাথে কোলাকুলি করছে, সেখানে তোমাদের মত শিল্পীরা সেই রবীন্দ্রজয়ন্তীতে পড়ে রয়েছ?
ঋক :  না, মানে ঠিক তা নয়  …
গেষ্ট :  ছড়িয়ে দাও রবীন্দ্র ভাবনা ইন্টারনেটে, শুনছিলাম জেমস ক্যামেরন বলে একজন “অবতার” নামে একটি ছবি করেছেন|
তা তোমরা  মাল্টিমিডিয়ায় পাল তুলে দাও না রবীন্দ্র স্মরণ-মননের ! “তাসের দেশ” পড়েছ নিশ্চয়ই , তা মাথায় আসেনা? তাসের দেশকে কেমন করে ত্রিমাত্রিক ভাবে বানানো যায় ? আজ দেড়শ বছর ধরে সেই গতানুগতিক রবীন্দ্রজয়ন্তী দেখে আসছি । তা তোমরা বাপু পরের বছরে এই তাসেরদেশ নৃত্যনাট্যটিকে যদি মাল্টিমিডিয়ার সাহায্যে মঞ্চস্থ করতে পার তাহলে বুঝি | যেখানে তাসের দেশের বিচিত্র তাসেরা মানুষের চারপাশে নেচে কুঁদে সব অনুশাসনের কথা বলবে, আর দর্শকরা ৩ডি চশমা পরে  দেখবে আর চেঁচিয়ে বলে উঠবে “এলেম নতুন দেশে …..” অথবা গেয়ে উঠবে “আমরা নূতন যৌবনেরই দূত”

ঋক : খাসা চিন্তা ভাবনা ! আপনার ক্রিয়েটিভিটির তারিফ না করে পারছিনা ।
গেষ্ট : রিসোর্স কে ভাঙিয়ে খাচ্ছ খাও  কিন্তু মনে রেখ, রিসোর্সের আর লিমিটেড বাট ক্রিয়েটিভিটি ইজ আনলিমিটেড !
ঋভু : এক্কেবারে ঠিক কথা বলেছেন । আপনার ইমেল আইডি টা দেবেন প্লিজ, আপনি আসুন না আমাদের অনুষ্ঠানে
গেষ্ট :  “তুমি মোর পাও নাই পাও নাই পরিচয় ”
ঋজু :  দিন না আপনার ব্লগের ঠিকানা
গেষ্ট :    ইমেল :  bhanudada@parolok.com
আর  ব্লগের ঠিকানা  : http://rabindranath.geetanjali.com


“তোমাদের   “ঋ এ রবি রাতের তারা”
উঠুক ফুটে  আকাশপারে
আমি আছি, ছিলাম সাথে
যুগযুগান্ত  বছর পরে”

হঠাত সকলের নেট কানেক্সন চলে গেল, কিন্তু ঘরের আলো জ্বলে উঠল দপ্‌ করে !


এই অণুগল্পটি  আরো দুটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে : কফিহাউসের আড্ডা এবং লোটাকম্বল

৩টি মন্তব্য:

রনি পারভেজ বলেছেন...

Awesome.....
দারুন লাগলো গল্পটা। আসলেই আমাদের সাহিত্যকে একটু গুছিয়ে ঠিকমতো উপস্থাপন করতে পারলে তা কিন্তু অনেক কিছুকেই ছাড়িয়ে যাবে।

Manoranjan Chatterjee বলেছেন...

apner ei golpo ta age porini..sotti ki miss korechhi...bhison bhalo laglo...ami apner songe ekmot.."resources are limited but creativity is unlimited".aasadhron
aar bhanu singher je abirbhab hoyechhe apner golpe ta thriller keo har manabe

indira mukerjee (ইন্দিরা মুখার্জি) বলেছেন...

thank u Manoranjan!