৩০ মে, ২০১০

ঋণি

আবার তোকে চাইছি কিশোরবেলা,
নদীর ধারে ভাঙা পাড়ে সেই যে বকুলতলা
আমি তখন দশ-এগারো, শিউলিফুলের ভোর
আম-কাসুন্দী, লুকোচুরি, চোখে স্বপ্নের ঘোর
কাঠবেড়ালির পেয়ারা চুরি, ভাঙা কিছু কাঁচের চুড়ি
পেরিয়ে গেলি কিশোর সিঁড়ি, বসন্তে তোর দোলপিঁড়ি

আমি তখন ঊনিশ-কুড়ি, পুতুল বিয়ে ভোলা
কফিহাউস, অন্ত্যাক্ষরী আর, তর্কে তুফান তোলা
নিউমার্কেট, চৈত্রসেল, দু একটা টিউশানি
লাইব্রেরি, মেগাসিরিয়াল আর, “মহীনের ঘোড়া” শুনি
শীতের রোদে পিঠ তোর, উলকাঁটার উল্টোসোজা
সহজপাঠ শেষ হোলনা কো, শুরু রাস্তাখোঁজা

আবার তোক চাইছি কলেজবেলা
গানসিঁড়িটির ধার ঘেঁষে আয় আমার মেয়েবেলা
গানের ইস্কুল, বর্ষামঙ্গল ফিরিয়ে দেব তোকে,
মুঠো মুঠো শিউলি দেব,  কাঁচের চুড়ি পরিয়ে দেব
পয়লাবোশেখ, ফ্রকের ঝালর, জরির ফিতের ফাঁকে।

৩টি মন্তব্য:

রনি পারভেজ বলেছেন...

আমিও আমার ছেলেবেলাকে খুব মিস করি আপু। মাঝেমাঝেই নস্টালজিক হয়ে যাই। :(

Mahasweta বলেছেন...

আমার এই কবিতাটা খুব ভালো লাগলঃ)

Nirmalya Sengupta বলেছেন...

Hothath-ee aapnar blog-e ese porlaam, mon-bhalo kora kichu lekha porlaam aar ei kobita-ta-r resh niye phire gelaam. Khoob sundar blog baniyechen! Shubhechha roilo.

Nirmalya Sengupta