৩ অক্টোবর, ২০১৬

কাউন্ট ডাউন বিগিনস...

র্বভূতে তিনি চেতনায় আছেন? হায়রে! তাই মানুষ আজ অচৈতন্য? মানুষের সব কোমলপ্রবৃত্তি আজ কোথায় অন্তর্হিত হল? কোথায় লুকোল মানুষের চেতনা? মানুষ তো এখন জড় পদার্থ গো মা। এর মূলে কিন্তু তুমি। আমাদের সর্বভূতের সর্ব চেতনা তোমার মধ্যে তাই আমরা আজ চেতনা-চৈতন্যহীন হয়ে নিঃস্ব।

তুমি বুদ্ধিরূপেণ সংস্থিতা। তাই বলে মানুষের সব বোধবুদ্ধি কি তোমার কাছে গচ্ছিত ? তাই কি আজ সমাজের সর্বস্তরে মানুষের মধ্যে এত বুদ্ধির অভাব ? অথচ বুদ্ধিজীবিতে ছয়লাপ চারিদিক।

তুমি ক্ষুধারূপেণ সংস্থিতা। তবুও কেন মানুষের ক্ষুধা দূর করোনা? এযুগেও পৃথিবীতে খাদ্যের অভাব এখনো ।

তুমি নাকি লজ্জারূপেণ সংস্থিতা? তাই কি মেয়েদের সব লাজলজ্জা, বসন ভূষণ হরণ করেছ? তাই বুঝি আজ তারা দেশের আনাচেকানাচে, পথেঘাটে, অলিতেগলিতে, দিনেদুপুরে নির্লজ্জের মতো ধর্ষিতা? অপমানিতা, লাঞ্ছিতা?

তিনি শান্তিরূপেণ সংস্থিতা, তাই বুঝি ভুবনব্যাপী শান্তির বড়োই অভাব। সব শান্তি হরণ করে তিনি নিজেই আজ তুরীয়া নন্দিনী যে। তোমরা চাইলে উনি থোড়ি দেবেন। তোমরাই তো যুগ যুগ ধরে বলে আসছ, তাই উনি দুনিয়ার সব শান্তির ভান্ডার থেকে শান্তি হরণ করলেন কি? তাই বুঝি শান্তির এত হাহাকার।

তুমি শক্তিরূপেণ সংস্থিতা, কিন্তু তাই বলে সব জাগতিক শক্তির আধার থেকে সব শক্তি কেড়ে নিয়ে বসে রইলে তুমি? এ তুমি কেমন তুমি? প্রকৃত শক্তির এত অভাব কেন ঘটালে মা?

তুমি স্মৃতিরূপেণ, নিদ্রারূপেণ, ভ্রান্তিরূপেণ সংস্থিতা.....ব্লা, ব্লা, ব্লা...

তাই বলে মানুষের স্মৃতির আগার থেকে সব স্মৃতিটুকুনি আর সেই সঙ্গে আমাদের ভুল ভ্রান্তি সব ঝেড়েপুঁছে নিয়ে বসে আছ? তাহলেও আমাদের এত ভুলভ্রান্তি হয় কেন গো মা? আর মানুষের এত ভুলে যাওয়ার রোগ ক্রমাগতঃ বেড়েই চলেছে। ঘরে ঘরে ডিমেনশিয়া। মানুষের চোখ থেকে সব ঘুম নিয়ে তুমি নিদ্রারূপেণ বিরাজিতা। আর তাই বুঝি এত অনিদ্রার প্রকোপ। ঘুম নেই কারোর চোখে।

কোন মন্তব্য নেই: